রায়পুরে বন্দুকযুদ্ধে চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী সোহেল নিহত
প্রথম পাতা » প্রধান সংবাদ » রায়পুরে বন্দুকযুদ্ধে চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী সোহেল নিহত


বুধবার ● ১১ জুলাই ২০১৮

---রায়পুর নিউজ ডেস্ক : লক্ষ্মীপুরের রায়পুরের চরপাতা এলাকায় আসামী ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টাকালে পুলিশ ও ডাকাত দলের মধ্যে (আজ) বুধবার ভোররাতে গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। এসময় গুলিতে ২২ মামলার পলাতক আসামী শীর্ষ সন্ত্রাসী সোহেল রানা নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় এসআই মোতাহের হোসেন, এসআই গোলাম মোস্তফা নামে দুই পুলিশ সদস্য আহত হন। ঘটনাস্থল থেকে একটি এলজি, ৯রাউন্ড কার্তুস ও ৩০০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। নিহত সোহেল রানা রায়পুরের উত্তর দেনায়েতপুর গ্রামের মৃত মুনাফের ছেলে।
পুলিশ জানান, গুলিতে নিহত ২২ মামলার আসামী ও শীর্ষ সন্ত্রাসী ডাকাত সোহেল রানার বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি, ডাকাতি ও মাদকের রায়পুর ও ফরিদগঞ্জসহ বিভিন্ন থানায় ২২টি মামলা রয়েছে। ওইসব মামলায় সোহেল পলাতক আসামী ছিলেন। গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সদর উপজেলার ঝুমুর সিনেমা হল এলাকা থেকে সোহেল রানাকে গ্রেফতার করা হয়। ভোররাতে তাকে নিয়ে তাকে অস্ত্র ও মাদক উদ্ধারে যায় পুলিশ। পরে রায়পুর-চাঁদপুর সড়কের পাশে চরপাতা এলাকা পুলিশ সোহেলকে নিয়ে পৌঁছলে তার সহযোগীরা পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে গুলি ছুঁড়ে। ওইসময় সোহেল রানা গুলিবিদ্ধ হয়। এসময় দুই পুলিশ সদস্যও আহত হয়। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় সোহেলকে হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক গুলিতে আহত সোহেল রানাকে মৃত ঘোষণা করেন। ঘটনায় আহত রায়পুর থানা পুলিশের এসআই গোলাম মোস্তফা ও এসআই মোতাহের হোসেনকে রায়পুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হয়।
রায়পুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) একেএম আজিজুর রহমান মিয়া জানান, লক্ষ্মীপুর সদরের ঝুমুর সিনেমা হল এলাকা থেকে ২২ টি মামলার পলাতক আসামী সোহেল রানাকে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় আটক করা হয়। পরে রাতে তাকে নিয়ে অভিযানে গেলে তার সহযোগীরা তাকে ছিনিয়ে নিতে গুলি চালায়। পুলিশও গুলি চালায়। এসময় তাদের গুলিতে সোহেল গুলিবিদ্ধ হন। পরে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র, গুলি ও ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় দুই পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে। নিহতের মরদেহ লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১০:২৮:৩২ ● ১১৯০ বার পঠিত



পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)



আরো পড়ুন...