রায়পুর পৌর আওয়ামীলীগে ওরা ৩ জন
প্রথম পাতা » মুক্ত মত » রায়পুর পৌর আওয়ামীলীগে ওরা ৩ জন


রবিবার ● ১৩ মে ২০১৮

---মোঃআজম : অবশেষে দীর্ঘদিন পরে হলেও সকল জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে রায়পুর পৌর আওয়ামীলীগের সম্মেলন আগামী ৩০ জুন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। একদিকে যেমন চমকপ্রদ খবর অন্যদিকে পৌর আওয়ামীলীগেও আনন্দ এবং শঙ্কা কাজ করছে। কারা আসছেন এই নতুন কমিটিতে আর কারা আসতে পারবেন না এইসব নিয়ে এখনই শুরু হয়ে গেছে গুঞ্জন !

রায়পুর পৌরবাসী কি চায় ?

যেহেতু আওয়ামী রাজনৈতিক ব্যপার সেহেতু আওয়ামী মনারাই এখন এনিয়ে ভাববে এটাই স্বাভাবিক। এ দলের নেতা কর্মীরাই এখন যাচাই বাচাই করবে,তারাই নির্ধারণ করবে কে হবে পৌর রাজনীতির সেবক ?

“জামশেদ কবির বাক্কি বিল্লাহ”

৯০ দশকেই রায়পুরে আলোচনার শীর্ষে চলে আসেন এই নেতা, রায়পুরে কিছু উশৃঙ্খল জনগোষ্ঠির একক আধিপত্য বিস্তার কে হঠাৎ নিজস্ব কলাকৌশলে দমিয়ে দিয়ে পূরো রায়পুর উপজেলায় আলোচনার কেন্দ্র বিন্দুতে পরিণত হন তিনি। ধীরে ধীরে নিজস্ব বুদ্ধিমত্তা, মিটিং মিছিল বা জনসভায় পিঁছনের সারি থেকে সামনের দিকে অগ্রসর হতে থাকেন। তৎকালিন সাংসদ হারুনুর রশিদের অনেক গণসংযোগেও একটু দূরের চেয়ারে আসন নিতে হলেও নিজস্ব ভাব গাম্ভির্য, অন্যান্য নেতা কর্মীদের সাথে বন্ধুত্বপূর্ন আচরণ,ছোট বড় সকলের সাথে আদর ভালোবাসার সৌহার্দপূর্ণতায় কোন কমতি রাখতেন না তিনি । রাজনীতিতে বহুল পরীক্ষিত এই নেতা মাত্র কয়েকদিনের ব্যবধানেই লাইমলাইনে চলে আসেন। ৯০ দশকের শেষের দিকে সাধারণ সভা সমাবেশ থেকে শুরু করে সর্বস্তরের রাজনৈতিক গুরুত্বপূর্ণ বক্তা হিসেবে ব্যপক খ্যাতি লাভ করেন।একসময় বাক্কি বিল্লাহ মানে রাজনীতিতে নতুন সংযোযন আর ব্যাটে বলে ছক্কা মারার তুখোড় খেলোড়ার হিসেবে পরিচিত হয়ে উঠেন পুরো রায়পুর উপজেলা জুড়ে । অপ্রতিরোধ্য, নিজের মনোবল,আত্নবিশ্বাস, শ্রম আর জনবান্দব বাক্কি বিল্লাহ রায়পুর পৌরসভার স্থায়ী বাসিন্দা,ণাগরিক এবং সর্বজন স্বীকৃত আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে শক্তিশালী স্টেনগান হিসেবে রায়পুর পৌর আওয়ামীলীগের দায়িত্বভার গ্রহন করে এখন পুরোদমে নতুন সম্মেলনের মাধ্যমে পৌর আওয়ামীলীগের প্রধাণ চরিত্রে থাকবেন এটাই এখন সময়ের দাবি বলে সকলে আশা করেন।

” রফিক বাঙ্গালী ”

একজন দেশ প্রেমিক প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধার গর্বিত সন্তান। দেশ প্রেম, সততা,নিষ্ঠা,সাংস্কৃতিমনা সকলের কাছে প্রিয় ব্যক্তিত্ব হিসেব সু-খ্যাতি লাভ করেছেন এই রফিক বাঙ্গালী। চাওয়া পাওয়ার হিসেব কোনদিনই মেলাতে পারেন নি এই নেতা! রাতারাতী কালো টাকার পাহাড় বানানোর মত কর্মকান্ড করা অনেক নেতা তার পাশ্বস্থ হলেও বাঙ্গালী এখনো বাঙ্গালী-ই রয়ে গেছেন। রাজনীতি করেও নিজের অবস্থান পিঁছনের চেয়ারেই ধরে রেখে প্রকৃত শান্তি অনুভব করেন। সকল দলের লোকের সাথেই তার ভাবগাম্ভির্য আওয়ামী রাজনীতিতে শিক্ষনীয় হতে পারে। বর্তমান প্রজন্ম এবং ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কাছে রফিক বাঙ্গালীর রাজনীতি হতে পারে অণুকরণীয় অণুস্মরণীয়। নিজের রচিয়িত এবং তার নিজস্ব নির্দেশনায় একাধিক যুদ্ধভিত্তিক নাটক, সামাজিক অসঙ্গতি তুলে ধরে তার সুষ্ঠ সমাধান করার উপায় হাতে কলমে এমনকি প্রত্যক্ষ্য এবং পরোক্ষ ভাবে জনসন্মুখে তুলে ধরার আপ্রাণ প্রচেষ্টা এখনও চালিয়ে যাচ্ছেন। নামে বে-নামে সমাজের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বিষয় তুলে ধরতেন পত্র পত্রিকায়। কোমল হৃদয়ের অধিকারী সমাজ সংস্কার নিয়ে তার ভূমিকা,পৌরসভার স্থায়ী ণাগরিক এবং বাসিন্দা এই নেতা পৌর আওয়ামীলীগের গুরুত্বপূর্ণ আসনে অধিষ্ঠিত হলে পৌর আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে নতুন টার্নিং নিবে নিঃস্বন্দেহে।

” নাসির উদ্দিন রাসেল ”

ছাত্র রাজনীতি থেকে উঠে আসা আরেক নেতা তিনি ! নিজের দক্ষতা বঙ্গবন্ধুর আদর্শের প্রতি শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় নিবেদিত প্রাণ নাসির উদ্দিন রাসেল। বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের রায়পুর উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ সকল সহযোগী সংগঠণের হাত ধরে গুটি গুটি পায়ে এগিয়ে চলা এই নেতা এখন পিঁছনে পড়ে থাকুক এটা আওয়ামী রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত অনেকেরই কাম্য নয়। রফিক বাঙ্গালী আর নাসির উদ্দিন রাসেলের জুটি রায়পুর যুবলীগে একসময় পরিচ্ছন্ন রাজনীতির ধারক বাহক হিসেবে সু-পরিচিত ছিল। সময়ের সাথে পাল্লা দিয়ে খরগোস আর কচ্ছপের দৌড় প্রতিযোগিতায় তাকে অনেকটা প্ররিশ্রান্ত ঝিমিয়ে পড়া খরগোসের মতই মনে হয়। যদিও তিনি বর্তমানে রায়পুর পৌর ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর। নাসির উদ্দিন রাসেলও রায়পুর পৌরসভায় স্থায়ী ণাগরিক এবং বাসিন্দা হিসেবে রায়পুর পৌর আওয়ামীলীগের গুরুত্বপূর্ণ আসনে অধিষ্ঠিত হয়ে সুন্দর এবং যোগ্য একটি পৌর কমিটি রায়পুর পৌরসভার জন্য একটি নতুন সারপ্রাইজ হবে এটাই পৌরসভায় স্থায়ী বাসিন্দাদের উথ্যাপিত দাবি।

পরিশেষে এটাই বলবো — আমার ভোট আমি দিব যাকে খুশি তাকে দিব, এই অধীকার প্রতিষ্ঠা করবে রায়পুর পৌর আওয়ামীলীগের সকল নেতৃবৃন্দ, দলের খাতিরে সিলেকশন হউক আর ইলেকশন হউক সকলেই সকলের প্রতি সন্মান দেখাবেন এটাই রায়পুর পৌরসভার সকলের কাম্য ।

বাংলাদেশ সময়: ১৩:৩০:০৪ ● ৮৯৮ বার পঠিত



পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)



আরো পড়ুন...